জামায়াতের সংস্কারপন্থীদের নতুন দল “এবি পার্টি”

জামায়াতের সংস্কারপন্থীদের নতুন দল “এবি পার্টি”

শনিবার সকালে বিজয় নগরে এক সংবাদ সম্মেলনে নতুন দলের নাম ঘোষণা করেন এক বছর আগে বহিষ্কৃত জামায়াত নেতা মুজিবুর রহমান মঞ্জু।

নতুন দলের নাম ঘোষণার পাশাপাশি ২২২ সদস্যের একটি আহ্বায়ক কমিটিও ঘোষণা করা হয়েছে সংবাদ সম্মেলনে।
এ দলে আহ্বায়ক হিসেবে আছেন জামায়াতে ইসলামী থেকে পদত্যাগকারী এএফএম সোলায়মান চৌধুরী, যিনি একজন সাবেক সচিব। আর ইসলামী ছাত্রশিবিরের সাবেক সভাপতি মঞ্জু এ কমিটির সদস্য সচিব।
সংবাদ সম্মেলনে মঞ্জু বলেন, ‘‘সমালোচকদের তীর্ষক ভ্রূকুটি উপেক্ষা করে আমরা ঘোষণা করছি, আজ থেকে আমাদের দলের নাম ‘আমার বাংলাদেশ পার্টি’- এবি পার্টি।
“আমরা মনে করি, একাত্তর সালের স্বাধীনতা যুদ্ধ ও বিজয় আমাদের জাতীয় ঐক্যের অন্যতম পাটাতন। এবি পার্টি সেই পাটাতনকে সুদৃঢ় ভিত্তির উপর দাঁড় করাতে বদ্ধ পরিকর।”
বিজয় নগরে ‘সায়হাম স্কাই ভিউ’ টাওয়ারে ‘জন আকাঙ্ক্ষার বাংলাদেশ’এর কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলনের ব্যানারে লেখা ছিলো ‘সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও সামাজিক সুবিচার এই তিন মূলনীতির ভিত্তিতে জনআকাঙ্ক্ষার বাংলাদেশ পুনর্গঠন করে নতুন রাজনৈতিক দল আমার বাংলাদেশ পার্টি-এবি পার্টির আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠান।
সংবাদ সম্মেলনে নতুন দলের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য তুলে ধরেন অবসরপ্রাপ্ত মেজর আব্দুল ওহাব মিনার। তিনি বলেন, ‘ধর্ম, বর্ণ, জাতি নির্বিশেষে’ প্রতিটি মানুষের মৌলিক ও নাগরিক অধিকার নিশ্চিত করার মাধ্যমে বাংলাদেশকে একটি ‘কল্যাণ রাষ্ট্রে উন্নীত করা’ হবে এ সংগঠনের উদ্দেশ্য।
এবি পার্টির ৭ দফা কর্মসূচিতে বলা হয়- জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠা, গণতন্ত্র ও মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠা, প্রেরণা সৃষ্টি, উন্নয়ন ও গবেষণা, নেতৃত্ব তৈরি, সামাজিক এবং রাষ্ট্রীয় সংস্কার ও কল্যাণ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় কাজ করবে এ দল। আর ‘জন আকাঙ্ক্ষার বাংলাদেশ’থাকবে এবি পার্টির ‘রিসার্চ উইং’ হিসেবে।
মঞ্জু বলেন, আহ্বায়ক কমিটির দায়িত্ব হবে সব জেলায় কমিটি গঠন করা, দলের খসড়া গঠনতন্ত্র চূড়ান্ত করা এবং দ্রুততম সময়ে গণতান্ত্রিক ও গঠনতন্ত্র অনুযায়ী জাতীয় কনভেনশন করে দলের নেতৃত্ব নির্বাচন করা।
করোনাভাইরাসের মহামারী মোকাবিলায় ‘জনগণের পাশে থাকার’ অঙ্গীকার জানিয়ে তিনি বলেন, “আমরা আমাদের সীমিত সামর্থ্যে ২০ হাজার বিপদগ্রস্থ পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দেওয়ার কর্মসূচি শুরু করেছি। আপাতত আমাদের পরিকল্পনা হল- এই পরিস্থিতি থেকে উত্তরণ, মানব সেবাসহ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে মনোনিবেশ করা এবং নীতিনির্ধারণী সুপারিশমালা প্রণয়ন।”
মহামারীর দুযোর্গ কেটে গেলে নতুন দলের কার্য্ক্রম শুরু হবে বলে জানান এবি পার্টির সদস্য সচিব।
সংবাদ সম্মেলনের মঞ্চে ছিলেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে যুদ্ধাপরাধীদের পক্ষে আইনি লড়াই চালানো ব্যারিস্টার তাজুল ইসলাম, ব্যারিস্টার যোবায়ের আহমদ ভুঁইয়া, ব্যারিস্টার আসাদুজ্জামান ফুয়াদসহ কয়েকজন।
আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণার আগ পর্যন্ত এএফএম সোলায়মান চৌধুরী অতিথির আসনে বসা ছিলেন; কমিটি ঘোষণার পর তিনি মঞ্চে আছেন।
সোলায়মান চৌধুরী এক সময় ছিলেন জামায়াতে ইসলামীর মজলিশে শুরা সদস্য এবং জাতীয় পেশাজীবী ফোরামের সভাপতি। গত বছর ডিসেম্বরে তিনি জামায়াত থেকে পদত্যাগ করে ‘জন আকাঙ্ক্ষার বাংলাদেশ’ এর সাথে যুক্ত হন।
সাবেক সচিব সোলায়মান চৌধুরী রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যানও ছিলেন। ২০০১ সালে খালেদা জিয়ার সরকারের সময় ফেনীর জেলা প্রশাসক থাকাকালে আওয়ামী লীগের সাবেক সাংসদ জয়নাল হাজারীর বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে ব্যাপক আলোচিত হন এই আমলা। একাদশ সংসদ নির্বাচনে তিনি কুমিল্লা-৯ আসনে জামায়াতের প্রার্থী ছিলেন।
মজিবুর রহমান মঞ্জুও জামায়াতের কেন্দ্রীয় মজলিশে শুরার সদস্য ছিলেন। ইসলামী ছাত্রশিবিরের সভাপতি হওয়ার আগে চট্টগ্রাম কলেজ এবং চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শিবিরের সভাপতির দায়িত্বও তিনি পালন করেন।

দেশ বাংলা নিউজ

দেশ বাংলা নিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *