» অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে দীর্ঘ অপেক্ষার অবসান ঘটাতে চায় নিউজিল্যান্ড

প্রকাশিত: ০৫. সেপ্টেম্বর. ২০২২ | সোমবার

প্রায় ৩৯ বছর আগে ১৯৮৩ সালে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে এক ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ জিতেছিল নিউজিল্যান্ড। এরপর আর কখনও দ্বিপক্ষীয় বা অন্য কোনো টুর্নামেন্ট জিততে পারেনি কিউইরা। এবার দীর্ঘ অপেক্ষার পালা ঘোঁচানোর লক্ষ্য নিয়ে আগামীকাল অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ শুরু করছে নিউজিল্যান্ড। সিরিজটি বিশ^কাপ সুপার লিগের অংশ হওয়ায় আগের রেকর্ড ধরে রেখে সব ম্যাচ জিততে মরিয়া অস্ট্রেলিয়া।
কেয়ানর্সে আগামীকাল বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টা ২০ মিনিটে শুরু হবে নিউজিল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার প্রথম ওয়ানডে।

১৯৮০ সালে প্রথম অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ওয়ানডে খেলে নিউজিল্যান্ড। সেটি ছিলো ত্রিদেশীয় সিরিজের ম্যাচ। এরপর ১৯৮৩ সালে আবারও ত্রিদেশীয় সিরিজে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ওয়ানডে খেলতে নেমেছিলো নিউজিল্যান্ড। আর ওই বছরই ত্রিদেশীয় সিরিজের বাইরে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে এক ম্যাচের একটি সিরিজ খেলেছিলো কিউইরা। সেটি জিতেছিল নিউজিল্যান্ড।
তবে দীর্ঘ বিরতির পর ২০০৪ সালে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে প্রথম চ্যাপেল-হ্যাডলি নামে দুই ম্যাচের দ্বিপাক্ষীক ওয়ানডে সিরিজ খেলে নিউজিল্যান্ড। সিরিজটি ড্র হয়েছিল। এরপর দুদলের মধ্যে তিনটি দ্বিপক্ষীয় সিরিজ হয় সবগুলোতেই জিতেছে অস্ট্রেলিয়া।
আর ২০২০ সালের ১৩ মার্চ সিডনিতে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডে খেলেছিল অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড। করোনার কারনে প্রথম ম্যাচটি ফাঁকা গ্যালারিতে অনুষ্ঠিত হয়েছিলো। ওই ম্যাচটি ৭১ রানে জিতে নেয় অস্ট্রেলিয়া। ওই ম্যাচের পর করোনায় আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ হবার উপক্রম হওয়ায় সিরিজটি স্থগিত করা হয়। ২০২১ সালে কয়েকবারই স্থগিত হওয়া সিরিজটি আয়োজনের চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয় দুদেশের ক্রিকেট বোর্ড। আর ওই ম্যাচের পর আর কোন ওয়ানডে খেলেনি অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড।

করোনা পরিস্তিতির উন্নতি হওয়ায় অবশেষে তিন ম্যাচের সিরিজ খেলতে নামছে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড। বিশ^কাপ সুপার লিগের অংশ হওয়াতে সিরিজটি দুদলের কাছেই সমান গুরুত্বপূর্ণ।
সুপার লিগে এখন পর্যন্ত ১২ ম্যাচ খেলে ১১০ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের চতুর্থস্থানে নিউজিল্যান্ড। আর ১৫ ম্যাচে ৯০ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের সপ্তমস্থানে অস্ট্রেলিয়া। তাই সিরিজের গুরুত্ব বিবেচনায় সব ম্যাচই জিততে চায় দুদল।
অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ বলেন, ‘সুপার লিগের অংশ হওয়ায় এই সিরিজের গুরুত্ব অনেক বেশি। তাই নিজেদের সেরাটা দিয়ে সিরিজ জয়ের সঙ্গে সঙ্গে সব ম্যাচই জিততে চাই আমরা। সিরিজে ১০ পয়েন্ট অনেক গুরুত্ব বহন করবে। এ ছাড়া নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ঘরের মাঠে আমাদের রেকর্ড খুবই ভালো। সেই রেকর্ড অক্ষুন্ন রাখতে চাই আমরা।’
গত মাসে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ ২-১ ব্যবধানে জিতেছিল নিউজিল্যান্ড। আর ঘরের মাঠে গত শনিবার জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ শেষ করে অস্ট্রেলিয়া। প্রথম দুই ম্যাচ জিতলেও, তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে জিম্বাবুয়ের কাছে হারে অসিরা। শেষ পর্যন্ত ২-১ ব্যবধানে সিরিজস জিতে অস্ট্রেলিয়া।
তাই ওয়ানডে সিরিজ জয়ের স্বাদ নিয়ে, এবার নিজেরা মুখোমুখি অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড।

এখন পর্যন্ত ওয়ানডেতে ১৩৮বার মুখোমুখি হয়েছে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড। এরমধ্যে জয়ের পাল্লা ভারী অসিদের দিকে। ৯২টি ম্যাচ জিতেছে তারা। ৩৯টি ম্যাচে জয় পায় নিউজিল্যান্ড। ৭টি ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ২৪ বার

[hupso]